Loading...

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ (পেপারব্যাক)

স্টক: স্টকে আছে (১৯ এর বেশি কপি আছে)

৩৯০.০০ ২৭৩.০০

"প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ২" বইয়ের পিছনের কভারের লেখা: ঘুটঘুটে অন্ধকার! সেই অন্ধকার গ্রাস করে আছে সবকিছু। এমন সময় কোথা থেকে যেন ছুটে আসে এক উষ্ণ আলােক রশ্মি। সেই আলাের পরশে নিমিষেই মিলিয়ে যায় অন্ধকার রাত। প্রভাতী কিরণের মতােই চতুর্দিকে ছড়িয়ে পড়ে এই আলােক রশ্মি। যাত্রা হয় এক নতুন দিনের, নতুন সময়ের। এমনই আবহে সত্য ও পবিত্র পথের সন্ধানে দুঃসাহসিক অভিযাত্রার গল্প নিয়ে এগিয়ে যায় সাজিদ-আর অবিশ্বাসের দেয়ালে গেঁথে যায় বিশ্বাসের। কথামালা। ভেঙে পড়ে অবিশ্বাসের দেয়াল। নির্মিত হয় সত্যের ইমারত। সত্য আর শুভ্রতার সেই গল্পে আপনিও একজন অংশীদার। ‘প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ-২ বইয়ের সূচিপত্রঃ’ কুরআন কি নারীদের শস্যক্ষেত্র বলেছে?- ১৫ A Reply to Christian Missionary- ২৫ ইসলাম কি অমুসলিমদের অধিকার নিশ্চিত করে?- ৪০ কুরআনে বৈপরীত্যের সত্যাসত্য- ৫১ বনু কুরাইজা হত্যাকাণ্ড—ঘটনার পেছনের ঘটনা- ৬৩ স্যাটানিক ভার্সেস ও শয়তানের ওপরে ঈমান আনার গল্প- ৮০ রাসূলের একাধিক বিবাহের নেপথ্যে- ৯২ জান্নাতেও মদ?- ১১৩ গল্পে জল্পে ডারউইনিজম- ১২৫ কুরআন কেন আরবী ভাষায়- ১৩৬ সূর্য যাবে ডুবে- ১৫৩ সমুদ্রবিজ্ঞান- ১৬৪ লেট দেয়ার বি লাইট- ১৭৯ কাবার ঐতিহাসিক সত্যতা- ১৯৮ নিউটনের ঈশ্বর- ২১৫ পরমাণুর চেয়েও ছোট- ২২৫ লেখক-পরিচিতি- ২৩৫ বইয়ের কিছু কথাঃ কুরআন কি নারীদের শস্যক্ষেত্র বলেছে? অনেকদিন পর শাহবাগে হঠাৎ নীলু দা’র সাথে দেখা। প্রথমে খেয়াল করিনি। পেছন থেকে এসে আমার মাথায় টোকা দিয়ে বললেন, কী খবর কবি সাহেব?’ পেছন ফিরতেই দেখি হাতে একগাদা বই নিয়ে নীলু দা দাঁড়িয়ে আছেন। চোখে মোটা ফ্রেমের কালো চশমা লাগিয়েছেন বলে দেখতে একদম স্কুল মাস্টারের মতো লাগছে। খয়েরি রঙের টি-শার্ট গায়ে। আমি খুবই অপ্রস্তুত ছিলাম। বললাম, আরে দাদাভাই যে! কেমন আছ? ‘ভালো। তুই কেমন?’ ‘ভালো।’ কুশলাদি বিনিময় করতে করতে আমরা একটি ফাঁকা স্থানে এসে দাঁড়ালাম। নীলু দা জিজ্ঞেস করল, ‘সাজিদ কোথায়?’ এই মুহূর্তে সাজিদ কোথায় তা আমিও জানি না। একটু আগেও সে আমার সাথে ছিল। আমি মোবাইলে টাকা রিচার্জ করে এসে দেখি সে উধাও। কখন থেকে ফোন করেই যাচ্ছি! যদিও জানি, সে আমার ফোন ওঠাবে না, তবুও ব্যর্থ চেষ্টা করে যাওয়া আরকি! কতক্ষণই বা এরকম কাঠফাঁটা রোদে দাঁড়িয়ে থাকা যায়? নীলু দা’র প্রশ্নের জবাবে বললাম, ‘আছে হয়তো এদিকে কোথাও।’
paradoxical sajid-2,paradoxical sajid-2 in boiferry,paradoxical sajid-2 buy online,paradoxical sajid-2 by Arif Azad,9789849420309,paradoxical sajid-2 Ebook,paradoxical sajid-2 Ebook in BD,paradoxical sajid-2 Ebook in Dhaka,paradoxical sajid-2 Ebook in Bangladesh,paradoxical sajid-2 Ebook in boiferry,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ বইফেরীতে,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ অনলাইনে কিনুন,আরিফ আজাদ এর প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ ইবুক,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ ইবুক বিডি,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ ইবুক ঢাকায়,প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ ইবুক বাংলাদেশে
আরিফ আজাদ এর প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ -২ এখন পাচ্ছেন বইফেরীতে মাত্র 196 টাকায়। এছাড়া বইটির ইবুক ভার্শন পড়তে পারবেন বইফেরীতে। paradoxical sajid-2 by Arif Azadis now available in boiferry for only 196 TK. You can also read the e-book version of this book in boiferry.
ধরন পেপারব্যাক | ২২৫ পাতা
প্রথম প্রকাশ 2021-08-19
প্রকাশনী সমকালীন প্রকাশন
ISBN: 9789849420309
ভাষা বাংলা

ক্রেতার পর্যালোচনা

4
1 reviews

1-2 থেকে 2 পর্যালোচনা

  • পর্যালোচনা লিখেছেন 'Ayesha Shiddika'
    📗প্রারম্ভিকা : নতুন বইয়ের প্রতি আকর্ণন কারই বা না থাকে। বই পড়া হোক বা না হোক নতুন বইয়ের ঘ্রানে একটা আলাদা টান কাজ করে। তবে প্যারাডক্সিকাল সাজিদ-২ বইটির ঘ্রানই নয়, প্রতিটি পাতা, প্রতিটি শব্দ আমাকে টেনেছে। হারিয়ে গেছি বারবার নাস্তিকদের মনগড়া কিছু প্রশ্ন আর আর সাজিদের সেই ভিত্তিভীন প্রশ্নের দূর্দান্ত জবাবে। 📔কাহিনী সংক্ষেপ: লেখক প্যারাডক্সিকাল সাজিদ-২ বইটিকে মোট ১৬ টি পর্বে সাজিয়েছেন। আমি সংক্ষিপ্ত আকারে কয়েকটি পর্ব তুলে ধরলাম। 🍂 বইয়ের প্রথম অংশেই লেখক আপনাদের নিয়ে যাবে আলম ভাইয়ের টং দোকানে। সেখানে শবির ও বিমল দা'র প্রশ্ন ছিলো বনু কুরাইজা হত্যাকান্ড নিয়ে। রাষ্ট্রের কোনো ব্যাক্তি বা গোত্র দেশদ্রোহীতা করলে তাকে উপযুক্ত শাস্তি প্রদান করা রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব ও কর্তব্য। 🍂 ইসলাম কি অমুসলিমদের অধিকার নিশ্চিত করে? আচ্ছা, এর উত্তর কি আপনাদের কাছে আছে? না থাকলেও সমস্যা নেই। সাজিদের কাছে অবশ্যই আছে। কুরআন ও হাদিসের আলোকে যে ব্যাখ্যা সাজিদ দিয়েছে তাতে আপনি অবাক হতে বাধ্য। 🍂 চলুন এবার ঘুরে আসি ভিক্টোরিয়া পার্ক থেকে। সেখানে দেখা হয়ে গেলো মইনুল নামক ছেলের সাথে। সে খুব সুক্ষ কারনে নাস্তিক হয়ে গেছে। তার ধারনা কুরআনে নাকি পরস্পর বিরোধী তথ্য দেওয়া আছে। কিন্তু আফসোস সেখানে সাজিদ ছিলো। মাত্র কিছু সময়ের ব্যাবধানে সেই ছেলের ভুল ধারনা ভেঙ্গে দেয়। 🍂 এ বারের ঘটনা ডেভিড কে নিয়ে। সে এসেছে তার খ্রিস্টান বন্ধু এলেন এর সাথে ক্রিসমাস ডে পালন করার জন্য। কিন্তু সে জানতো না এই অকেশনের পিছনের ইতিহাস। লুকায়িত কিছু সত্য সামনে চলে আসে। 📘ব্যাক্তিগত মতামত : বইটি সম্পর্কে কিছু বলতে গেলে হয়তো শব্দ কম পড়ে যাবে। বইটি পড়তে গিয়ে মাঝেমাঝে খুব চিন্তা হবে, নাস্তিকদের অবান্তর কিছু প্রশ্নে রাগ হবে, কিছু কিছু জায়গায় সাজিদের নিরবতা আপনাকে রাগিয়ে তুলবে। 📕বইটি কেন পড়বেন : যদি প্রশ্ন করা হয় এই বইটি কেন পড়বেন? উত্তর হবে - নাস্তিকদের প্রশ্ন কতটা মনগড়া হতে পারে তা জানার জন্য, ইসলামকে নিয়ে মনের মধ্যে থাকা দ্বিধা দূর করার জন্য, অজানা কিছু সত্য জানার জন্য। আমার মতে বইটি প্রত্যেকের একবার হলেও পড়া উচিত।অন্তত ভুল ধারনাগুলো ভেঙে যাওয়ার জন্য। নিজেকে জ্ঞানকে আরেকটু ঝালাই করে নিতে চাইলে বইটি পড়তেই পারেন। আশা করি হতাশ হবেন না। 📝শেষকথন : একটি ভালো বইয়ের শেষ বলতে কিছু হয় না। বইটি যতবার পড়বেন ততবারই নতুন লাগবে। প্যারাডক্সিকাল সাজিদ বই দিয়েই আরিফ আজাদ'র বই পড়া শুরু আমার। শেষে কিছু কথা না বললেই নয় তাহলো, এই বইটি নিয়ে অনেক বিতর্কিত প্রশ্ন আছে। এ বইটি শুধুমাত্র নাস্তিকদের কিছু প্রশ্নের জবাব মাত্র। লেখকে কুরআন, হাদীস ও বিজ্ঞানের আলোকে প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন।
    June 28, 2022
  • পর্যালোচনা লিখেছেন 'Rakibul Hassan'
    ___নীলু'দার কথা অনুযায়ী ‘কুরআন নারীকে শস্যক্ষেত্রের সাথে তুলনা করতে গিয়ে নারীকে অপমানের মুখে ফেলেছে’ একথা সম্পূর্ণভাবে নারীদের জন্য চরম অপমানজনক। নীলু'দার কথার উপর সাজিদ নীলু'দাকে বুঝাতে গিয়ে নানারকম হাদিস, দলিল আর বিভিন্ন প্রমাণ তুলে ধরেছে। যার প্রেক্ষিতে স্পষ্ট একটি আয়াত কুরআনে নাযিল হয়েছে। নিশ্চয়ই আমাদের কুরআনের সবদিক অনুশীলন করা উচিৎ। না জেনে না বুঝে অনেকেই নীলু'দার মতো ভুল অর্থ, ভুল মানে খোঁজার বৃথা চেষ্টা করি। ভুল অর্থ না খুঁজে কুরআনকে ভালোভাবে জানলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। তাই যেকোনো কিছু বলার আগে কুরআনকে ভালোভাবে জানা দরকার। ___তিন অন্ধের হাতি দর্শনের গল্পটাও দারুণ ভাবে ফুটিয়ে তুলেছে সাজিদ। যার কোনো বর্ণনা হয় না। কোনোকিছু অনুমান করে বলে দেওয়া উচিৎ নয়, ভালো করে দেখেশুনে, সঠিকভাবে পর্যবেক্ষণ করে জিনিসটার পার্থক্য গণনা করা উচিৎ। অনুমান যে সবসময় সঠিক হবে তার তো কোনো মানে হয় না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অনুমান ভুল প্রমাণিত হয়। আমাদের উচিৎ এই আন্দাজে ঢিল ছুঁড়ে মারা বিষয়টা রাতারাতি পরিবর্তন করা। একান্ত কিছু কথা বইকে ঘিরে : কুরআনের কোন জায়গায় কোন কথা উল্লেখ আছে সবটাই সাজিদ কুরআনের ভাষা দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছে। পৃথিবীকে জানতে হলে, সবার আগে আমাদের জানতে এই পৃথিবী কার সৃষ্টি? কে তাঁর পরিচায়ক? কেন এই পৃথিবীর সৃষ্টি? কী উদ্দেশ্য আছে এই পৃথিবী সৃষ্টির পেছনে? আর সেসব প্রশ্নের উত্তর কেবল কুরআনে উল্লেখ আছে। যা পূর্ববর্তী ও পরবর্তী সকল মানুষের হেদায়েতের জন্য নাযিল করা হয়েছে। যা যুগে যুগে অপরিবর্তনীয় এবং যে কিতাব সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বশেষ রাসুল অর্থাৎ, হযরত মুহাম্মদ স: এর উপর দীর্ঘ তেইশ বছর ধরে নাযিল হয়েছিল। এই কিতাবটাই হলো- মহাগ্রন্থ আল কুরআন। যাতে উল্লেখ আছে - ‘ذالك الکتاب لا ریب فیه’ অর্থাৎ, ‘এটা এমন একটি কিতাব যাতে সন্দেহের বিন্দুমাত্র অবকাশ নেই।’ আমার অনুভূতি : অনুভূতি সম্পর্কে যাই প্রকাশ করবো সেটাই কম হবে। বইয়ের ভেতরে খারাপ বা ভুল কোনো ত্রুটি আমার চোখে পড়েনি। তাই লেখক সম্পর্কে খারাপ কিছু তুলে ধরার বিন্দুমাত্র ইচ্ছে নেই। এমন বই পড়লে গহীন অন্ধকারের মধ্যে লুকিয়ে থাকা ব্যক্তিও আলোর দিশা খুঁজে পাবে। আমার মতে; যদি দ্বীনের পথে আসতে চাও, যদি ইসলামকে পরিপূর্ণভাবে জানতে চাও, যদি আল্লাহর ও তাঁর রাসুলের সান্নিধ্য লাভ করতে চাও তাহলে অবশ্যই প্যারাডক্সিকাল সাজিদ ২ বইটি সংগ্রহ করে নাও। এতে ইসলামের প্রায় সব দিকই তুলে ধরা হয়েছে। যে এই বইটা পড়বে তারই কেবল মনে হবে, ‘সে জ্ঞানের সাগরে সাঁতরে চলেছে প্রবল শক্তি আর সাহসের বেগে।’ আমারও সেটাই মনে হয়েছে। জ্ঞান যেখানে ভরপুর সেখানে ভয় থাকার কথাই না। অসামান্য সৌন্দর্যের অধিকারী এই বই! আর বইয়ের ভেতরে কালো রঙে সাজানো প্রতিটা শব্দের তরঙ্গ যেন বিধাতাকে জানার আগ্রহ আরও বাড়িয়ে তুলেছে। পছন্দের চরিত্র : প্যারাডক্সিকাল সাজিদ মানেই আমাদের সবার প্রিয় যুক্তিবাদী সাজিদ। এমন গুছানো কথা, যা মুহুর্তেই মন ছুঁয়ে যায়। হৃদয়ের গভীর থেকে আরো গভীরে তুমুলভাবে ধাক্কা দেয়। ঘুমন্ত হৃদয়কে জাগিয়ে তুলে যার কিছু হাদিস, কিছু অসাধারণ কথার যুক্তি! তাইতো সাজিদ সবার মনেপ্রাণে মিশে আছে। মিশে আছে সাজিদের কিছু জ্ঞান মূলক যুক্তি।
    June 30, 2022
আরিফ আজাদ
লেখকের জীবনী
আরিফ আজাদ (Arif Azad)

আরিফ আজাদ আরিফ আজাদ একজন জীবন্ত আলোকবর্তিকা- লেখক আরিফ আজাদকে বর্ণনা করতে গিয়ে একথাই বলেছেন ডঃ শামসুল আরেফিন। গার্ডিয়ান প্রকাশনী আরিফ আজাদের পরিচয় দিতে গিয়ে লিখেছে, “তিনি বিশ্বাস নিয়ে লেখেন, অবিশ্বাসের আয়না চূর্ণবিচুর্ণ করেন।” আরিফ আজাদ এর বই মানেই একুশে বইমেলায় বেস্ট সেলার, এতটাই জনপ্রিয় এ লেখক। সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশের সাহিত্য অঙ্গনে সবচেয়ে আলোড়ন তোলা লেখকদের একজন আরিফ আজাদ। ১৯৯০ সালের ৭ই জানুয়ারি চট্টগ্রামে জন্ম নেয়া এ লেখক মাধ্যমিক শিক্ষাজীবন শেষ করে চট্টগ্রাম জিলা স্কুলে। একটি সরকারি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন এবং সেখানে উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন করেন। লেখালেখির ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই আরিফ আজাদ এর বই সমূহ পাঠক মহলে ব্যাপক সাড়া ফেলে। তার প্রথম বই ‘প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ’ ২০১৭ সালের একুশে বইমেলায় প্রকাশ পায়। বইটির কেন্দ্রীয় চরিত্র সাজিদ বিভিন্ন কথোপকথনের মধ্যে তার নাস্তিক বন্ধুর অবিশ্বাসকে বিজ্ঞানসম্মত নানা যুক্তিতর্কের মাধ্যমে খণ্ডন করে। আর এসব কথোপকথনের মধ্য দিয়েই বইটিতে অবিশ্বাসীদের অনেক যুক্তি খণ্ডন করেছেন লেখক। বইটি প্রকাশের পরপরই তুমুল জনপ্রিয়তা পায়। এটি ইংরেজি ও অসমীয়া ভাষায় অনূদিতও হয়েছে। ২০১৯ সালের একুশে বইমেলায় ‘প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ - ২’ প্রকাশিত হয়ে এবং এটিও বেস্টসেলারে পরিণত হয়। সাজিদ সিরিজ ছাড়াও আরিফ আজাদ এর বই সমগ্রতে আছে ‘আরজ আলী সমীপে’ এবং ‘সত্যকথন’ (সহলেখক) এর মতো তুমুল জনপ্রিয় বই।

সংশ্লিষ্ট বই